ত্বকের যত্নে একটি উপাদানই যথেষ্ট!

শীতের শুষ্ক আবহাওয়া রুক্ষ ও নির্জীব করে তোলে ত্বক। এ সময়ে সবার ত্বকে টান তো ধরেই, কারও কারও ত্বকে ফাটলও ধরে। তাই শীতকালে ত্বকের বাড়তি যত্নের প্রয়োজন হয়। দরকার হয় ময়শ্চারাইজারের। তবে বাজারচলতি ময়শ্চারাইজারের উপর ভরসা করতে গেলে অনেক সময়ই ত্বকের ক্ষতি হয়। তাই প্রচলিত ক্রিমে মিশে থাকা রাসায়নিক এড়ানোটাই বুদ্ধিমানের কাজ।

এ ক্ষেত্রে ভরসা রাখতে পারেন প্রাকৃতিক উপাদান গ্লিসারিনের উপর। এই উপাদানটি ত্বকের সমস্যাগুলো কমাতে সাহায্য করে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ছাড়াই। বর্ণহীন ও গন্ধহীন এই তরল আসলে উদ্ভিদ থেকে আসে। গ্লিসারিনের প্রভাবে ত্বকের ফাটা ভাব থেকে শুরু করে নানা সমস্যা দূর হয়।

শীত এলে বিভিন্ন প্রসাধনী কোম্পানি গ্লিসারিন মিশ্রিত নানা প্রসাধনীই বাজারজাত করে। তবে সেখানেও ভয় থাকে রাসায়নিকের। তাই ত্বকের সঠিক যত্ন নিতে রাসায়নিকবিহীন খাঁটি গ্লিসারিন ব্যবহার করুন। এবার গ্লিসারিন কী ভাবে ব্যবহার করবেন তা জেনে নিন…

* রূপবিশেষজ্ঞদের মতে, মুখে জমে থাকা তেল ও ধুলাবালি দূর করতে বাড়ি ফিরে গ্লিসারিন ব্যবহার করে ধুয়ে নিন মুখ। গভীর ভাবে ত্বক পরিষ্কার করার ক্ষমতা আছে গ্লিসারিনের। ক্লিনজিং মিল্কের পরিবর্তে এই উপাদানেই দূর করতে পারেন মুখের যাবতীয় ক্লেদ।

* ত্বক থেকে সহজে পানি সরে যেতে দেয় না গ্লিসারিন। ত্বকের কোষে পানি ধরে রেখে ত্বককে আর্দ্র রাখে গ্লিসারিন।

* এর কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। তাই সব ধরনের ত্বকের ক্ষেত্রে এটি বিশেষভাবে কার্যকর। ত্বকের ছোটখাটো সমস্যা, ফুসকুড়ি বা জ্বালাভাব কমাতে গ্লিসারিন কাজে আসে।

* শীতে গোলাপজলের সঙ্গে গ্লিসারিন মিশিয়ে প্রতি রাতে ঘুমনোর আগে টোনিং করুন ত্বক। এভাবে করতে পারলে ত্বক তো ফাটবেই না, বরং শীতেও থাকবে নরম ও উজ্জ্বল।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *